অস্ট্রেলিয়ার ভিসা প্রসেসিং সম্পর্কে জেনে নিন

Jakir Hossain August 23, 2019 No Comments

অস্ট্রেলিয়ার ভিসা প্রসেসিং সম্পর্কে জেনে নিন

পৃথিবীর শীর্ষ শান্তিপূর্ণ  দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম অস্ট্রেলিয়া, সামাজিক নিরাপত্তা, লেখাপড়ার চমৎকার পরিবেশ এবং সমৃদ্ধশালী অর্থনীতি, অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, স্বাস্থ্যকর আবহাওয়া, সামাজিক নিরাপত্তা, দেশটিকে সবার পছন্দের শীর্ষে রেখেছে।

এই অপরুপ সুন্দর দেশটির ভিসা নিতে গেলে আপনাকে যেসব কাজ গুলো করতে হবে সেগুলো জেনে নিন।

 

অস্ট্রেলিয়া যেতে ভিসা আবেদন জমা দিতে হবে ভিএফএস সেন্টারে।

ঠিকানা:
ডেল্টা লাইফ টাওয়ার, ৫ম তলা, প্লট: ৩৭, সড়ক: ৯০, নর্থ এভিনিউ, গুলশান ২, ঢাকা- ১২১২।

ই-মেইল:
info.ausbd@vfshelpline.com

হেল্প লাইন:
+ 88 02 9895894 (রবি থেকে বৃহস্পতি সকাল ৮:৩০ টা থেকে দুপুর ২ টা এবং বিকাল ৩ টা থেকে বিকাল ৪টা।
অস্ট্রেলিয়ার ডিপার্টমেন্ট অব ইমিগ্রেশন এন্ড বর্ডার প্রটেকশন এর বাংলাদেশ অফিসটি রয়েছে ঢাকাস্থ অস্ট্রেলীয় হাই কমিশন অফিস প্রাঙ্গণে।

ঠিকানা:
১৮৪, গুলশান এভিনিউ, গুলশান ২, ঢাকা-১২১২।

হেল্প লাইন: +8802 8813105 এক্সটেনশন 452 (রবি- থেকে বৃহস্পতি, সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা)
ক্লায়েন্ট আওয়ার হল সকাল ৮:৩০ টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত, ওয়েবসাইট থেকে এপয়েন্টমেন্টের মাধ্যমে যেতে হবে।

ট্যুরিস্ট স্ট্রিম (সাবক্লাস ৬০০)

ছুটি কাটানো, বেড়ানো কিংবা আত্নীয়-স্বজন বা বন্ধু-বান্ধবের সাথে দেখা করতে অস্ট্রেলিয়া যেতে ট্যুরিস্ট স্ট্রিমের আওতায় আবেদন করতে হবে। ব্যবসায়িক বা চিকিৎসা সংক্রান্ত উদ্দেশ্যে যেতে হলে এ পদ্ধতিতে ভিসার আবেদন করা যাবে না।
অস্ট্রেলিয়ার বাইরে থেকে যারা অস্ট্রেলিয়া যাবেন তাদের অস্ট্রেলিয়ার বাইরে থেকেই ভিসার আবেদন করতে হবে আর যারা অস্ট্রেলিয়ায় আছেন এবং অবস্থানের সময় বাড়িয়ে নিতে চাইছেন তাদের অবশ্যই অস্ট্রেলিয়ায় ভিসা আবেদন জমা দিতে হবে।
বিজনেস ভিজিটর স্ট্রিম (সাবক্লাস ৬০০)

ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে অস্ট্রেলিয়া যেতে বিজনেস ভিজিটর স্ট্রিমের আওতায় আবেদন করতে হবে। সাধারণ ব্যবসায়িক কাজ ছাড়াও ব্যবসায়িক আলাপ আলোচনা বা কনফারেন্সের জন্য বিজনেস ভিজিটর ভিসার জন্য আবেদন করতে হয়।

 

ভিসা ফি :-

ভিসা ক্যাটাগরি                  ভিসা ফি (অস্ট্রেলিয়ান ডলারে)‌          ভিসা ফি (বাংলাদেশী টাকায়)

ট্যুরিস্ট স্ট্রিম                                                  ১৩০                                            ৯৯১০

বিজনেস ভিজিটর স্ট্রিম                               ১৩০                                              ৯৯১০

 

আবেদনপত্রের সাথে যেসব কাগজপত্র জমা দিতে হবে:

আবেদনপত্রের সাথে কোন কাগজের মূল-কপি জমা দেয়ার প্রয়োজন নেই। সর্টিফাইড কপি জমা দিলেই চলবে। মূল-কপি প্রয়োজন হলে আলাদাভাবে উল্লেখ করা হবে। কোন কাগজ ইংরেজিতে না থাকলে সেটার যথাযথ ইংরেজি অনুবাদও জমা দিতে হবে। ভিসা আবেদনের সাথে পূর্ণাঙ্গ তথ্য দেয়া হচ্ছে কিনা সেটা নিশ্চিত করতে হবে। এছাড়া ভিসা আবেদন বিবেচনার জন্য আরও তথ্য চাওয়া হতে পারে।

বর্তমান এবং আগের পাসপোর্টের (যদি থাকে) সত্যায়িত কপি প্রয়োজন হবে। নোটারী পাবলিকের মাধ্যম সত্যায়ন করতে হবে ভিএফএস অফিস থেকেও মূল পাসপোর্ট দেখিয়ে সত্যায়ন করে নেয়া যায়। জন্মসনদের সত্যায়িত কপি লাগবে। জন্মসনদে বাবা-মা উভয়ের নাম উল্লেখ থাকতে হবে। পাসপোর্ট সাইজের সাম্প্রতিক (৪৫ মিলিমিটার × ৩৫ মিলিমিটার) ছবি, ছয় মাসের বেশি পুরনো নয়।

Categories : VISA Processing