প্রাইভেট/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রসেস নিয়ে A-Z জানুন

Jakir Hossain August 24, 2019 No Comments

প্রাইভেট/বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রসেস নিয়ে A-Z জানুন

বাংলাদেশের অতিরিক্ত জনসংখ্যা ও আর্থিক অবস্থার উন্যতির কারনে উচ্চতর শিক্ষার চাহিদা দিন দিন ব্যাপক আকার ধারন করছে, এই চাহিদা সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গুলো না মেটাতে পারায় সরকার বেসরকারী বা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেয়। যেসব শিক্ষার্থী পড়াশোনার জন্য হয়ত ভারত বা অন্য কোন দেশে যেত তাদের অনেকে এখন দেশের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেই পড়ছে। এভাবে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হচ্ছে বলেও বলছেন অনেকে। feeglee.com এর পাঠকদের জন্য আজ নিয়ে এলাম বেসরকারি/প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রসেস বা নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত।

কিছু মানসম্মত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির প্রসেস দেয়া হলো
১) নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি

ভর্তিঃ-
আন্ডারগ্রাজুয়েট পর্যায়ে ভর্তির ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী পরীক্ষার ফলাফল এবং ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনায় নেয়া হয়। ভর্তি ফরমের মূল্য ৮০০ টাকা, নির্ধারিত ব্যাংক থেকে ভর্তি ফরম কেনা যায় আবার বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইট থেকে ফরম ডাউনলোড করে সেটা পূরণ করেও জমা দেয়া যায়। সেক্ষেত্রে ফরমের সাথে ৮০০ টাকার পে-আর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফট দিতে হয়।

আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা:-
এনটিসিবির পাঠ্যক্রম হলে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার প্রতিটিতে অন্তত জিপিএ ৩.৫ থাকতে হবে।
ইংরেজী মাধ্যম হলে ও-লেভেলে পাঁচটি বিষয়ে জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে আর এ-লেভেলে দু’টি বিষয়ে ২.০ থাকতে হবে।
তবে স্যাট ১২০০ অথবা টোফেল ৫৫০ অথবা আইইএলটিএস ৫.৫ স্কোর থাকলে সরাসরি ভর্তির সুযোগ দেয়া হয়।

এখানে পড়াশোনার খরচ:
ভর্তি ফি: পুরো কোর্সে একবারই ভর্তি ফি দিতে হয় এবং দেবার পর তা কখনো ফেরত দেয়া হয় না।

প্রোগ্রাম ভর্তি ফি

আন্ডারগ্রাজুয়েট প্রোগ্রামগুলোর জন্য ২০,০০০ টাকা

এমবিএ প্রোগ্রাম ২০,০০০ টাকা

ইভিনিং এমবিএ ২০,০০০ টাকা

এমএস ইন ইটিই/সিএসই/এমপিএইচ ১৫,০০০ টাকা

এমএস/এমএ ইন বায়ো-টেক/ইংরেজী/অর্থনীতি/এমডিএস ১০,০০০ টাকা

প্রতি ক্রেডিটে টিউশন ফি

প্রোগ্রাম টিউশন ফি

আন্ডারগ্রাজুয়েট প্রোগ্রামগুলোর জন্য ৪,৫০০ টাকা

এমবিএ প্রোগ্রাম ৫,৫০০ টাকা

ইভিনিং এমবিএ প্রোগ্রাম ৬,০০০ টাকা

এস ইন সিএসই/ইটিই ৪,২২৫ টাকা

এস ইন বায়োটেক ৪,২২৫ টাকা

এমএস/এমএ ইন ইংলিশ/ইকো/এমডিএস ৪,৫০০ টাকা

এমপিএইচ ৪,২২৫ টাকা

নন ডিগ্রী স্টুডেন্টস ৮,০০০ টাকা

এছাড়া সকল শিক্ষার্থীকেই প্রতি সেমিস্টারে স্টুডেন্ট এ্যাক্টিভিটি ফি বাবদ ২,০০০ টাকা, কম্পিউটার ল্যাব ফি বাবদ ১,৫০০ টাকা এবং লাইব্রেরী ফি বাবদ ৫০০ টাকা দিতে হয়। ভর্তির সময় জামানত হিসেবে দিতে হয় ৫,০০০ টাকা। ফর্মেসী, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, বায়োটেক, এমপিএইচ এবং ইএমভি নিয়ে পড়াশোনা করছে এমন শিক্ষার্থীদের ল্যাব ফি হিসেবে প্রতি সেমিস্টারে অতিরিক্ত ৫০০ টাকা দিতে হয়। স্থাপত্যবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থীদের স্টুডিও কোর্স ফি হিসেবে প্রতি সেমিস্টারে ৩,০০০ টাকা দিতে হয়।

অন্যান্য সার্টিফিকেট কোর্সের ফি

কোর্স ফি

ডিজিটাল এন্ড অনলাইন লাইব্রেরীয়ানশীপ ১০,০০০ টাকা

ইংলিশ সার্টিফিকেট কোর্স ৭,০০০ টাকা

ইংলিশ স্পোকেন কোর্স (সিইপি) ৬,০০০ টাকা

ইংলিশ কোর্স (জেনারেল স্কিল ফর প্রফেশনালস) ৬,০০০ টাকা

চাইনীজ ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্স ৫,০০০ টাকা

ফ্রেঞ্চ ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্স ৫,০০০ টাকা

প্রি-ম্যাথ/প্রি-ইংলিশ কোর্স (পুরো সেমিস্টারের খরচ একত্রে) ২০,০০০ টাকা

এছাড়া ফিল্ড স্টাডির খরচ ডিপার্টমেন্ট থেকে নির্ধারন করা হয়।

২) আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
ভর্তির যোগ্যতাঃ-
এইচএসসি, আলিম বা এইচএসসি সমতূ্ল্য ডিপ্লোমা বা অন্যান্য কোর্সে পাশ করে এখানকার আন্ডারগ্রাজুয়েট কোর্স ভর্তি হতে হয়। এসএসসি এবং এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষাগুলোতে জিপিএ ২.০০ বা ২য় বিভাগ থাকলে ভর্তির জন্য আবেদন করা যায়। ও লেভেলের তিনটি বিষয় এবং এ লেভেলের দু’টি বিষয়ে সি গ্রেড থাকলে ভর্তির আবেদন করা যায়। গড় জিইডি স্কোর ৪৫০ এবং অন্তত পাঁচটি বিষয়ে ৮০০ এর মধ্যে ৪১০ থাকলে ভর্তির জন্য আবেদন করা যায়।

ভর্তির জন্য আবেদন করাঃ-
ভর্তির তথ্য সংক্রান্ত পুস্তিকা এবং ভর্তি ফরমের মূল্য ৫০০ টাকা, যেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি অফিস থেকে সংগ্রহ করতে হয়। অবশ্য ৫৫০ টাকা পাঠিয়ে দিলে ডাকেও ভর্তি ফরম পাঠিয়ে দেয়া হয়। প্রবাসী বাংলাদেশী বা বিদেশী নাগরিকগণ বাইরে থেকে আবেদন করতে চাইলে দিতে হবে ৫০০ টাকা। কেবলমাত্র ভর্তি ফরম দাখিলের মাধ্যমেও ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যায়।

৩) ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়
ভর্তি পরীক্ষাঃ-
ইংরেজী এবং লজিক্যাল রিজনিং এর ওপর একটি পরীক্ষা নেয়া হয়। বিবিএ, কম্পিউটার সায়েন্স, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইাঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, পদার্থবিজ্ঞান, ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিকস, গণিত অর্থনীতি, ফার্মেসী, মাইক্রোবায়োলজি, বায়োটেকনোলজি প্রভৃতি বিষয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে ইংরেজী, লজিক্যাল রিজনিং এবং গণিতের ওপর ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়।
স্থাপত্যবিদ্যায় ভর্তির ক্ষেত্রে এ বিষয়গুলোর পাশাপাশি অংকনেরও একটি পরীক্ষা নেয়া হয়। ভর্তি পরীক্ষায় প্রতিটি বিষয়ে অন্তত ৪০ পেতে হবে ভর্তি জন্য। লিখিত পরীক্ষায় নির্বাচিত হলে মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হয়।

ভর্তির আবেদনের যোগ্যতা:-
**এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার প্রতিটিতে অন্তত জিপিএ ৩.০০ থাকতে হবে।

**ও’ লেভেলে পাঁচটি বিষয়ে অন্তত জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে এবং এ লেভেলে দুটি বিষয়ে জিপিএ ২.৫ ছাড়াও মোট জিপিএ ৬.০০ থাকতে হবে। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালের স্কেল অনুযায়ী A=5, B=4, C=3, D=2 & E=1, কেবল একটি E গ্রহণযোগ্য।

**কেউ অন্য শিক্ষাপদ্ধতি থেকে সমমানের পরীক্ষা পাশ করে থাকলে বা দেশের বাইরে পড়াশোনা করে থাকলে আবেদনের আগে ইকুইভ্যালেন্স কমিটির অনুমোদন নিতে হবে।

**দু’বছর পর্যন্ত শিক্ষা বিরতি থাকলে আবেদন করা যায়। তবে শিক্ষা বিরতি দু’বছরের বেশি কিন্তু পাঁচ বছরের কম হলে ভর্তি কমিটির কাছে পাঠ বিরতির কারণ ব্যাখ্যা করতে হয়। আর পাঠবিরতি পাঁচ বছরের বেশি হলে সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন পেশ করা হয়।

**ইলেকট্রনিক এন্ড টেলিকিমিউনিকেশন ইঞ্জিনিারিং, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, পদার্থবিজ্ঞান, ফলিত পদার্থবিজ্ঞান এবং ইলেকট্রনিকসে ভর্তির ক্ষেত্রে এইচএসসি অথবা এ লেভেলে অবশ্যই পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিত থাকতে হবে।

Categories : Daily Tips