হাতঘড়ি কেনার আগে ও পরে, জানুন বিস্তারিত

Jakir Hossain August 31, 2019 No Comments

হাতঘড়ি কেনার আগে ও পরে, জানুন বিস্তারিত

হাতঘড়ি এমন একটি বস্তু যেটি আমাদের প্রতি নিয়ত সময় দেখার কাজে ব্যবহ্রুত হয়ে। এখনকার সময়ে হাতঘড়ি শুধু সময় দেখার জন্যই ব্যাবহার হয়না এটি এখন ফ্যাশনের অন্যতম একটি অংশ হয়ে উঠেছে। কম দামি ঘড়ি যেমন আছে তেমনি অনেক দামি ঘড়িও রয়েছে।
এখন বেশিরভাগ মানুষ দামি ঘড়িই কিনে থাকে টাইম দেখার থেকে সৈন্দর্জের জন্যই নিয়ে থাকে, আজ আমরা Feeglee.com এর পাঠকদের জন্য নিয়ে এলাম হাতঘড়ি কেনার আগে যে বিষয় গুলো বিবেচনায় রাখবেন।

ডিজাইনঃ-
এখন মানুষের চাহিদা ও স্টাইলের সাথে মিল রেখে ডিজাইন ও স্টাইলে আধুনিক থেকে আধুনিকতর হয়েছে। এজন্য ফ্যাশনপ্রেমীদের কাছে স্টাইলের অনুষঙ্গ হিসেবে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে হাতঘড়ি। বর্তমানে নানা ডিজাইনের ঘড়ি বাজারে পাওয়া যায়। বড় ডায়াল, আর মোটা চেইন এমন ঘড়িই তরুণদের পছন্দ, তবে তরুনরা স্পোর্টস ঘড়ি পরতেই বেশি সাচ্ছন্দবোধ করে।

কেমন বেল্টের ঘড়ি কিনবেনঃ-
এ ছাড়া বেল্টের চেয়ে মেটালের ও চওড়া চেইনের, আর কিছু চিকন চেইন এবং দামি পাথর খচিত ঘড়ি তরুণ-তরুণীদের অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এখনকার সময়ে রাউন্ডের চেয়ে অধিক স্কয়ার ডায়াল এবং রঙের ক্ষেত্রে গোল্ডেনের চেয়ে ব্ল্যাক, সিলভার এবং সিলভার ও গোল্ডেন মিক্সড বেশি চলছে। ছেলেদের ঘড়ির বেল্ট আগাগোড়ায় চওড়া বেল্টের হয়ে থাকে। দুয়েক বছর আগে মেয়েদের ঘড়ির বেল্ট বেশ চিকন ছিল। তবে যুগের সঙ্গে মেয়েদের ঘড়িতে এসেছে পরিবর্তন। তারাও মোটা ও চওড়া বেল্টের ঘড়ি পরছে এখন। হালফ্যাশনে বেশিরভাগ কর্মজীবী নারী ও পুরুষ তাদের কর্মস্থলে, কর্মব্যস্ত দিনে, কাজের প্রয়োজনে ও ফ্যাশন দুটো মিলিয়েই ঘড়িতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। তবে হাতঘড়ি কেনার আগে কয়েকটি ব্যাপারে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে।

লাইফস্টাইল :
ঘড়ি পছন্দ করতে আপনি যেই স্টাইলে থাকতে পছন্দ করেন সেটার কথা মাথায় রেখেই পছন্দ করুন। সেক্ষেত্রে হতে পারে ক্যাজুয়াল, ফরমাল, অথবা এঙ্ক্লুসিভ ডিজাইনের যে কোনো কিছু হতে পারে।

বাজেট :
আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী বাজেট তৈরি করতে হবে। খুব হাই ক্যাটাগরির ঘড়ি কম দামে খোঁজাটা যেমন বোকামি, ঠিক তেমনি ঘড়ির বাজেট নিয়ে যদি ঠিকমতো পরিকল্পনা করা না যায় তবে বেশি দাম দিয়ে নিম্নমানের ঘড়ি কিনে ঠকতে হবে। এছাড়া যদি কোনো বিলাশবহুল বা শখের দামি জিনিসের প্রতি ঝোঁক থেকে থাকে তবে সেই বিষয়ে ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিন।

ব্র্যান্ড :
ব্র্যান্ডের ঘড়ির প্রতি অনেকের আবার আগ্রহ বেশি থাকে। ব্র্যান্ডের ঘড়ির দাম সাধারণত একটু বেশিই হয়ে থাকে। কম দামি ব্র্যান্ডের ঘড়িও অনেকে খোঁজেন। ঘড়িটি যদি ব্র্যান্ডের হয় তবে সেটি আসল কিনা তা দেখে নিতে হবে। ব্র্যান্ডের ব্যাপারে যদি আপনার কোনো আইডিয়া না থাকে তবে ব্র্যান্ডের পেছনে না ছোটাই উত্তম।

Categories : Daily Tips